সব জ্ঞান কল্যাণকর নয়। জ্ঞান অনর্থক হয়, ক্ষতিকর হয়।

অনর্থক জ্ঞানের ব্যাপারে জ্ঞানীগণ বলে থাকেন,
هذا علم لا ينفع وجهالة لا تضر
“এই জ্ঞানে উপকার নেই, আর এর মুর্খতায় ক্ষতি নেই’

কিছু জ্ঞান অর্জন করা ফরজ, যেমন : দ্বীনের মৌলিক জ্ঞান।
আর কিছু জ্ঞান অর্জন করাকে উৎসাহিত করা হয়েছে, যেমন : চিকিৎসা ও প্রযুক্তি।

আবার কিছু জ্ঞান আছে যা অর্জন করা অনর্থক। যেমন সূরা কাহফে বর্ণিত আসহাবে কাহফের যুবকদের সাথে যে কুকুরটির ঘটনা বর্ণিত হয়েছে সেটির নাম, রং ও জাত জানতে চাওয়া অনর্থক।

কিছু জ্ঞান রয়েছে যা অর্জন করা হারাম, যেমন : জাদুবিদ্যা।

সুতরাং জ্ঞান অর্জনের আগে আমরা একবার ভাবি, জ্ঞানটা আমাদের জন্য উপকারী নাকি অনর্থক নাকি ক্ষতিকর।

রাসূলুল্লাহ ﷺ আল্লাহর নিকট দো’আ করতেন,

اللَّهُمَّ إِنِّي أَعُوذُ بِكَ مِنْ عِلْمٍ لاَ يَنْفَعُ

হে আল্লাহ্‌! আমি সেই জ্ঞান থেকে আপনার নিকট আশ্রয় চাই যা কোন উপকারে আসে না।
[নাসাঈ : ৫৪৬৯]