আবূ সালামাহ ইনতিকালের পর উম্মু সালামাহ একেবারেই একা হয়ে যান। কয়েকজন সন্তান নিয়ে সংসার অচলাবস্থা, ভীষণ অসহায়। উম্মু সালামাহ মনে মনে ভাবতেন তার জন্য আবু সালামাহর চেয়ে উত্তম আর কে হবে! এমতবস্থায় তাঁর মনে পড়ে গেল রাসূল ﷺ এর শিখিয়ে দেওয়া একটি দো’আর কথা। তিনি বলেছিলেন–

কোন বান্দা যখন মুসীবাতে পড়ে তখন যদি সে এই দো’আ করে তবে আল্লাহ তাকে তার মুসীবাতের বিনিময় দান করবেন এবং তাকে অধিক উত্তম বস্তু দান করবেন। দোয়াটি হল–

إِنَّا لِلَّهِ وَإِنَّا إِلَيْهِ رَاجِعُونَ، اللَّهُمَّ أْجُرْنِي فِي مُصِيبَتِي، وَأَخْلِفْ لِي خَيْرًا مِنْهَا

অর্থ : আমরা তো আল্লাহ্‌রই। আর নিশ্চয় আমরা তাঁর দিকেই প্রত্যাবর্তনকারী। হে আল্লাহ! আমাকে আমার বিপদে সওয়াব দিন এবং আমার জন্য তার চেয়েও উত্তম কিছু স্থলাভিষিক্ত করে দিন।

উম্মু সালামাহ দো’আটি করলেন। কিছুদিন পর স্বয়ং রাসূল ﷺ বিয়ের প্রস্তাব দেন উম্মু সালামাহকে। তিনি রাসূল ﷺ কে বলেন, এই বিয়েতে আমার তিনটি ব্যাপার আপনার বিবেচনাধীন। প্রথমত : আমি একটু বদ মেজাজী, যার কারণে আপনি আমার আচরণে কষ্ট পেতে পারেন। দ্বিতীয়ত : আমার বয়স হয়েছে। তৃতীয়ত : আমার কিছু সন্তান আছে যাদের দায়িত্ব আপনাকে নিতে হবে।

উম্মু সালামাহর সবগুলো প্রস্তাবে রাসূল ﷺ রাজী হলেন এবং তাকে বিয়ে করলেন। এভাবে উম্মু সালামাহর দো’আ কবুল হল, একজন অসহায় নারী এবং তাঁর সন্তানদের একটি আশ্রয় হলো।
সুত্র : সহিহ মুসলিম; Great Women of Islam