ইসলামে মানুষকে বিয়ের জন্য উৎসাহিত করা একটি উত্তম কাজ। রাসূলুল্লাহ ﷺ এবং সাহাবীগণের মধ্যে বিয়ের ব্যাপারে উৎসাহ প্রদানের রীতিটা লক্ষ্য করার মত ছিল।

রবি’আ ইবনে কাব আল-আসলামি রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু ছিলেন রাসূল ﷺ এর একজন খাদেম। স্ত্রীকে ভরণপোষন দেওয়ার মত তার তেমন কিছুই ছিল না। তথাপি বিয়ে করলে রবি’আকে স্ত্রী-সন্তানের পেছনে সময় দিতে হবে। তাদের জন্য পরিশ্রম করতে হবে। যা তাকে রাসূল ﷺ থেকে কিছুটা দূরে সরিয়ে দিতে পারে। এজন্য সে বিয়ে করতে চাইতো না।

রাসূলুল্লাল্লাহ ﷺ রবি’আকে প্রথমবার বিয়ে করতে বললেন। কিন্তু রবি’আ উক্ত অজুহাত দেখিয়ে বিয়ে করতে চাইল না। কিছুদিন পর তিনি দ্বিতীয় বার তাকে বিয়ে করে নিতে বললেন। এবারও সে একই অজুহাত দেখিয়ে বিয়ে করতে চাইল না।

তবে রবি’আ যেহেতু একজন মানুষ তারও যেহেতু জৈবিক চাহিদা রয়েছে। তাই সে মনে মনে বিয়ে করতে চাইতো আর ভাবতো, যদি রাসূলুল্লাহ ﷺ তৃতীয়বার আমাকে বিয়ে করতে বলেন, আমি অবশ্যই ‘হ্যাঁ’ বলব!

তৃতীয়বার রাসূল ﷺ যখন রবি’আকে একই কথা বললেন, তখন রবি’আ বলল, ‘অবশ্যই, হে আল্লাহর রাসুল! আপনি আমাকে যা চান বা যা পছন্দ করেন তার আদেশ দিন!’

তখন রাসূলুল্লাহ ﷺ তাকে বলেলেন– তুমি অমুক গোত্রে চলে যাও।
অর্থাৎ, তাকে আনসারদের একটি গোত্রে গিয়ে বিয়ের জন্য পাত্রী খুঁজতে বললেন। [মুসনাদ আহমাদ : ১৬৬২৭]