বায়তুল মাল তথা রাষ্ট্রীয় সম্পদের দায়িত্ব একজনের উপর আরোপিত, কোনদিন দূর্নীতি করেননি। এক টাকা খেয়ানত করেননি। কিন্তু তিনি হাদিস বর্ণনায় অযোগ্যতার পরিচয় দিয়েছেন। হোক সে সততা এবং ন্যায়নিষ্ঠতায় পরিপূর্ণ কিন্তু রাসূল ﷺ এর হাদিস বর্ণনা করতে গিয়ে গলদ করেছেন, অযোগ্যতার পরিচয় দিয়েছেন –এমন মানুষ থেকেও মদিনার মুহাদ্দিসগণ হাদিস গ্রহণ করতেন না।

মুহাদ্দিস ইয়াহয়া ইবনু সাঈদ বলেন, আমরা অনেক লােককে লক্ষ লক্ষ দিনার-দিরহামের (আমানতদারীতার) জন্য বিশ্বাস করতে পারি, কিন্তু তাদের বর্ণিত হাদিস গ্রহণ করতে পারি না।

মুঈন ইবনু ঈসা তার উস্তায ইমাম মালেক রহিমাহুল্লাহ থেকে যে হাদিসগুলাে বর্ণনা করতেন তার প্রত্যেকটি তিনি অন্তত ত্রিশবার করে শুনতেন।

মুহাদ্দিস ইব্রাহীম ইবনু সাঈদ আল জাওহারী বলেন যতক্ষণ এক-একটি হাদিস শত শত সূত্রে না পাই ততক্ষণ সে হাদিস সম্পর্কে নিজেকে এতীম মনে করি।
[ইত্তেবায়ে সুন্নাহ – মুহাম্মাদ ইকবাল কিলানী।]