একবার একলোক ইমাম আশ-শা’বী রহিমাহুল্লাহকে একটি প্রশ্ন করলো। উত্তরটা ইমাম শা’বী এর জানা ছিল না তাই তিনি উত্তর দিলেন ‘জানিনা’

লোকটি বললো, জানিনা বলতে আপনি লজ্জা পেলেন না? অথচ লোকেরা আপনাকে কুফা এবং বসরার শ্রেষ্ঠ ফকিহ হিসেবে জানে!

ইমাম আশ শা’বী রহিমাহুল্লাহ নির্লিপ্ত গলায় উত্তর দিলেন, ফেরেশতারা যে কথাটি বলতে লজ্জা পায়নি সেটা বলতে আমার লজ্জা কীসের?

অর্থাৎ ইমাম শা’বী বুঝাতে চাইলেন—যেদিন আদম আলাইহিস সালামকে সব জিনিসের নাম শেখানোর পর আল্লাহ ফেরেশতাদের সামনে কিছু জিনিস রেখে সেগুলোর নাম জিজ্ঞেস করলেন। তখন ফেরেশতারা বললেন,

سُبۡحٰنَکَ لَا عِلۡمَ لَنَاۤ اِلَّا مَا عَلَّمۡتَنَا ؕ اِنَّکَ اَنۡتَ الۡعَلِیۡمُ الۡحَکِیۡمُ

আপনি পবিত্র মহান। আপনি আমাদেরকে যা শিখিয়েছেন, তা ছাড়া আমাদের কোন জ্ঞান নেই। নিশ্চয় আপনি সর্বজ্ঞ, প্রজ্ঞাময়। [আল-বাক্বারা : ৩২]

ইমাম আশ শা’বী রহিমাহুল্লাহ এই আয়াতের দিকে ইঙ্গিত করে বলেছিলেন, ফেরেশতারা ‘জানিনা’ বলতে লজ্জা পায়নি। আমি কেন পাব?